বুধবার, ১২ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আমাদের ওয়েবসাইটে স্বাগতম (পরীক্ষামুলক স¤প্রচার)

স্কটল্যান্ডে করোনা ভাইরাস (বিস্তারিত)

স্কটল্যান্ডে বুধবার খুলছে ধমীর্য় প্রতিষ্টানসমুহ: যেসব নীতিমালা মেনে চলা বাধ্যতামুলক ?




বাংলা স্কট নিউজ (১৪ জুলাই ২০২০):

দীর্ঘ চার মাস বন্ধ থাকার পর বুধবার ১৫ জুলাই চালু হচ্ছে স্কটল্যান্ডের মসজিদ ও ধমীর্য় উপসনালয় সমুহ। স্কটল্যান্ডে লকডাউন শিথিলকরনের তৃতীয় ধাপে গতকাল প্রকাশিত এক সরকারী ঘোষনায় প্রার্থনায় কতজন লোক উপস্থিত হতে পারবেন তা সুর্নিদিষ্ট করে দেয়া হয়েছে।
এতে বলা হয়— মসজিদ, গির্জা বা মন্দিরে প্রার্থনার উদ্দেশ্যে একসাথে সর্বোচ্চ ৫০ জন লোক উপস্থিত হতে পারবেন। এক্ষেত্রে একটি প্রতিষ্টানের আয়তন কতটুকু সেটা গণ্য করা হবে না। শুধুমাত্র নামাজ বা প্রার্থনা ছাড়া সকল প্রকার জমায়েত — যেমন ওয়াজ, জিকির, দোয়া বা মিলাদ মাহফিল ইত্যাদি অনুষ্ঠান আয়োজন করা লকডাউন শিথিলের এই পর্যায়ে সম্পুর্ন বেআইনি।

অন্যদিকে বিবাহ বা শেষকৃত্য (জানাযা) অনুষ্ঠানে সর্বোচ্চ উপস্থিতি ২০ জন বলে জানা গেছে।

উপাসনালয়ে নামাজ/প্রার্থনায় যোগ দেয়ার ক্ষেত্রে যেসব শর্ত বাধ্যতামূলক তা হচ্ছে:

— আগতদের নাম ও ঠিকানা সংরক্ষন করতে হবে এবং প্রয়োজনে তা ব্যাবহার করা হতে পারে
— মসজিদে রাখা জায়নামাজ, তসবিহ, কোরান শরীফ, বই, টাওয়েল, টুপি ইত্যাদি ব্যাবহার করা যাবে না। যার যার ব্যাক্তিগত ব্যাবহার্য্য জিনিষ সাথে করে নিয়ে আসতে হবে
— ভিন্ন ভিন্ন পরিবার থেকে আগত সদস্যদের মধ্যে ২ মিটার দুরত্ব বজায় রাখতে হবে
— মসজিদে ব্যাক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে প্রয়োজনীয় উপকরন সমুহ মজুদ রাখতে হবে

এই মর্মে জানানো হয়েছে যে, সংশ্লিষ্ট ধমীর্য় প্রতিষ্টানের ম্যানেজমেন্ট কমিঠি বা কার্যনির্বাহী পরিষদ কতৃক এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করা বাধ্যতামুলক।

স্কটিশ কমিউনিটি সেক্রেটারী এইলিন ক্যাম্পবেল এমএসপি বলেন — ‘‘আমি এটা উপলব্দি করতে পারছি যে, বর্তমান দুর্যোগকালীন সময়ে আমাদের সকল ধর্মাবলম্বী মানুষ তাদের ধমীর্য় কার্যক্রমে নিয়মিতভাবে একত্রিত হতে পারছেন না। মহামারীর কারনে আমাদের বিশেষ কিছু ব্যাবস্থা নিতে হচ্ছে। এক্ষেত্রে সহযোগিতা ও ধৈর্য্য ধারনের জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি ”

সম্পাদক: মিজান রহমান
প্রকাশক: বিএসএন মিডিয়া, এডিনবরা, স্কটল্যাণ্ড থেকে প্রচারিত

সার্চ/খুঁজুন: