শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আমাদের ওয়েবসাইটে স্বাগতম (পরীক্ষামুলক স¤প্রচার)

স্কটল্যান্ডে করোনা ভাইরাস (বিস্তারিত)

কিভাবে অনলাইনে দেখা যাবে ইইউ নাগরিকদের ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস ?




বাংলা স্কট রিপোর্ট :
ইইউ নাগরিকরা এখন থেকে অনলাইনে দেখতে পারবেন তাদের ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস। গত ৩০ মার্চ থেকে ইইউ সেটেলমেন্ট স্কীমের আওতায় রেজিষ্ট্রেশন চালু হওয়ার পর থেকে হোম অফিস চালু করেছে এ ব্যাবস্থা।

ভবিষ্যতে ব্রেক্সিট কার্যকর হওয়ার পর ইউরোপিয়ান নাগরিকদের ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস প্রদর্শন করা বাধ্যতামুলক। ইইউ নাগরিকরা তাদের নানা সুযোগ সুবিধা গ্রহনের ক্ষেত্রে -যেমন বেনিফিট এবং অন্যান্য অধিকার কিংবা চাকুরীর ক্ষেত্রে তাদের ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস প্রমানের জন্য অনলাইন প্রোফাইল টি ই শুধু বিবেচনা করা হবে। এর সাথে আইডি হিসাবে পাসপোর্ট কিংবা রেসিডেন্ট কার্ড প্রদর্শন করতে হবে।

বাসা ভাড়া নেয়ার ক্ষেত্রে বা চাকুরীতে যোগ দিলে এই ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাসের প্রমানস্বরুপ এই প্রোফাইলের কপি উপস্থাপন করতে হবে। হোম অফিস সুত্রে জানা গেছে – সেটেলমেন্ট স্কীমের অধীনে রেজিস্ট্রেশন পরবর্তী কালে বৃটেনে বসবাসরত ইউরোপিয়ান পাসপোর্ট ধারী দের ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত কোন কার্ড বা চিঠি ইস্যু করা হবে না । শুধুমাত্র নন ইইউ নাগরিকদের দেয়া হবে বায়োমেট্রিক রেসিডেন্ট কার্ড।

অনলাইন প্রোফাইলে যা থাকবে ?

ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস, ছবি, মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার তারিখসহ আই ডি ডকুমেন্ট এবং সকল ব্যাক্তিগত তথ্য। অনেকটা অনলাইন ব্যাংক একাউন্টের আদলে থাকলে ও এর কোন পাসওয়ার্ড থাকবে না। আপনি যখন কোন ডকুমেন্ট নবায়ন করবেন কিংবা ঠিকানা/ফোন নাম্বার ইত্যাদি পরিবর্তন করবেন তখন প্রোফাইলে গিয়ে আপনার সকল তথ্য আপডেট করতে হবে। পরিবারের সকল সদস্যদের জন্য আলাদা আলাদা একটি করে প্রোফাইল থাকবে।

কিভাবে প্রোফাইল টি দেখা যাবে ?

ব্যাক্তিগত প্রোফাইলটি অনলাইনে দেখতে হলে নীচের ধারাবাহিক প্রক্রিয়াটি অনুসরন করতে পারেন –

১. প্রথমেই নিচের ওয়েবসাইট ভ্রমন করুন :
https://view-and-prove-your-rights.homeoffice.gov.uk
২. আপনি রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করার সময় যে আইডি ব্যাবহার করেছিলেন সেটা সিলেক্ট করুন । যেমন- পাসপোট, রেসিডেন্স কার্ড (বিআরপি) অথবা ন্যাশন্যাল আইডি কার্ড ।
৩. এরপর আপনার সংশ্লিষ্ট ডকুমেন্টের নাম্বার দিতে হবে (যেমন- পাসপোর্ট নাম্বার )
৪. পরের ধাপে আপনার জন্ম তারিখ দিতে হবে ।
৫. এখন আপনার ইমেইল এড্রেস এবং মোবাইল নাম্বার আসবে। দুটি অপশন থেকে যে কোন একটি সিলেক্ট করতে হবে। কেননা পরবর্তী ধাপে লগ-ইন করতে হলে ৬ সংখ্যার একটি পিন নাম্বার প্রয়োজন যা আপনার মোবাইলে বা ইমেইলে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে পাঠানো হবে।
৬. মোবাইল / ইমেইলে প্রাপ্ত ৬ সংখ্যার পিন নাম্বার টি দিলেই ছবি সহ আপনার প্রোফাইল দেখতে পাবেন। প্রত্যেকবার লগইন করার সময় পৃথক পৃথক পিন নাম্বার আসবে।

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের যেসব নাগরিক ব্রেক্সিট পরবর্তী সময়ে ব্রিটেনে স্থায়ী ভাবে বসবাস করতে চান তাদের জন্য স¤প্রতি চালু হয়েছে ইইউ সেটেলমেন্ট স্কীম। এই স্কীমের আওতায় গতবছর ডিসেম্বর মাসে পরীক্ষামুলক ভিত্তিতে চালু হয় রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়া। হোম অফিসের পুর্ব ঘোষনা অনুযায়ী গত ৩০ মার্চ থেকে চালু হয় পুর্ণাঙ্গ প্রক্রিয়া।

ইতিমধ্যে যারা রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করেছেন এবং তাদের আবেদন সফল হয়েছে শুধুমাত্র তারাই অনলাইন প্রোফাইল দেখতে পারবেন।

৫ বছরের কম সময় যারা ব্রিটেনে বসবাস করেছেনন তারা পাবেন ৫ বছর মেয়াদী পি-সেটেলড স্ট্যাটাস বা লিমিটেড লিভ-টু-রিমেইন। অন্যদিকে যারা ৫ বছরের বেশী সময় ব্রিটেনে বাস করেছেন তাদের কে দেয়া হবে সেটেলড স্ট্যাটাস অর্থাৎ স্থায়ী ভাবে থাকার অনুমতি।

৩০ মার্চ চালু হওয়া রেজিষ্টেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা বাংলাদেশীদের অনেকেই জানিয়েছেন তাদের অনলাইন আবেদনপত্র জমা দেয়ার ২-৩ দিনের মধ্যেই তারা সিদ্ধান্ত পেয়েছেন। কেউ কেউ আবার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই সিদ্ধান্ত পেয়েছেন।

সম্পাদক: মিজান রহমান
প্রকাশক: বিএসএন মিডিয়া, এডিনবরা, স্কটল্যাণ্ড থেকে প্রচারিত

সার্চ/খুঁজুন: